• শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ১২:০২ অপরাহ্ন

পরাজয় বরণ করল বাবর আজমের দল

অনলাইন ডেক্স / ৪৪ Time View
Update : মঙ্গলবার, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২৩

ব্যাটে-বলের লড়াইয়ে ভারতের রান পাহাড়ে আটকে পরাজয় বরণ করল বাবর আজমের দল।

কলম্বোর আর. প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে টস হেরে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে বিরাট কোহলি ও লোকেশ রাহুল জোড়া অপরাজিত সেঞ্চুরি করেন। এছাড়া দুই ওপেনার রোহিত শর্মা ও শুভমান গিলের জোড়া ফিফটিতে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ২ উইকেটের বিনিময়ে ৩৫৬ রানের বিশাল সংগ্রহ দাঁড় করায় ভারতীয় দল।

জবাবে পাহাড়সম লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে চায়নাম্যান স্পিনার কুলদীপ যাদবের ঘুর্ণিতে ৩২ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে মাত্র ১২৮ রান করে পাকিস্তান। এরপর লোয়ার অর্ডারে নাসিম শাহ ও হারিস রউফ ব্যাট করতে না নামায় ২২৮ রানের বিশাল ব্যবধানে জয় তুলে নেয় রাহুল দ্রাবিড়ের শিষ্যরা। দুই দলের মধ্যকার লড়াইয়ে সবচেয়ে বড় ব্যবধানের হারের রেকর্ডও এটি।

আগের দিন ব্যাটিংয়ে নেমে ভারতকে উড়ন্ত সূচনা এনে দেন অধিনায়ক রোহিত শর্মা ও শুভমান গিল। ফলে মাত্র ৮ ওভার ২ বলে দলীয় ফিফটি আসে ভারতের। এরপর ১৩.২ ওভারেই দলীয় শতরান পার করে ফেলেছিল ভারত। দুই ওপেনারই তুলে নেন হাফসেঞ্চুরি। ৩৭ বলে ১০টি চারের সাহায্যে পঞ্চাশ স্পর্শ করেন শুভমান।

আর ৪২ বলে টি চার ও ৪টি ছক্কায় নিজের ফিফটি পূরণ করেন রোহিত। উদ্বোধনী জুটিতে দলীয় ১২১ রানের মাথায় আউট হন ভারতের অধিনায়ক। ১৭তম ওভারে পাল লেগ স্পিনার শাদাব খানের ফ্লাইটেড ডেলিভারিতে লংঅফের উপর দিয়ে ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে ফাহিম আশরাফের হাতে ক্যাচ দিয়ে বসেন তিনি। ফলে ব্যক্তিগত ৫৬ রানে ফেরেন ভারতীয় অধিনায়ক।

এর পরের ওভারে দ্বিতীয় স্পেলে বোলিংয়ে ফিরেই শুভমানকে ফেরান শাহিন শাহ আফ্রিদি। শাহিন শাহ আফ্রিদির গুডলেন্থের বলে ড্রাইভ করতে গিয়ে কভারে শাদাবের হাতে ধরা পড়েন এই ওপেনার। ৫২ বলে ৫৮ রান তার ব্যাট থেকে। এরপর বৃষ্টিতে দিনের খেলা পরিত্যক্ত করার আগে রাহুল-কোহলির অবিচ্ছিন্ন জুটিতে ২৪.১ ওভারে ১৪৭ রান সংগ্রহ করে ভারত।

আজকে ম্যাচ শুরুর আগেও বৃষ্টি হয়। ফলে বেশ লম্বা সময় পর ব্যাটিংয়ে নামে ভারত। ব্যাটিংয়ে নেমে শুরু থেকেই পাকিস্তানি বোলারদের দেখেশুনে ব্যাটিং করেন কোহলি-রাহুল। তৃতীয় উইকেট জুটিতে ২৩৩ রানের অবিচ্ছিন্ন ইনিংস খেলে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৩৫৬ রানের বিশাল সংগ্রহ পায় ভারত।

এদিন চোট কাটিতে জাতীয় দলে প্রত্যাবর্তনের ম্যাচে ১০০ বলে ক্যারিয়ারের ষষ্ঠ সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন রাহুল। শেষ পর্যন্ত ১০৬ বলে ১১১ রান করে অপরাজিত থাকেন তিনি। তার ইনিংসে ছিল ১২ চার ও ২ ছক্কার মার। আর কোহলি ৮৪ বলে ওয়ানডেতে ৪৭ আর সব মিলিয়ে ৭৭তম সেঞ্চুরি করে ৯৪ বলের ইনিংসে কোহলি ১২২ রানে অপরাজিত থাকেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও সংবাদ